ভোলার চরফ্যাশনে সাংবাদিকে হুমকি

বাংলার কলম বাংলার কলম

নিজস্ব ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২১ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ২০, ২০২০ | আপডেট: ৯:২১ পূর্বাহ্ণ

ভোলার চরফ্যাসন উপজেলায় সাংবাদিকদের সংবাদ সংগ্রহের কাজে বাধা ও প্রকাশ্যে দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করেছেন অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য মোঃ মোশারেফ হোসেন নসু , মোঃ কবির ও মোঃ মামুন। রবি বার বেলা ২টার দিকে উপজেলার দুলারহাট থানাধীন নুরাবাদ ইউনিয়ন ৬ নং ওয়ার্ডে সাংবাদিকের সাথে এ ঘটনাটি ঘটে।

সাংবাদিকরা হলেন, দৈনিক কির্তন খোলার দুলার হাট প্রতিনিধি মোঃ সামসুদ্দিন হাওলাদার , আমার সংবাদ চরফ্যাসন প্রতিনিধি, মোঃ নোমান চৌধুরী ,দৈনিক আলোকিত সকাল চরফ্যাসন প্রতিনিধি মোঃ আকতারুজ্জামান সুজন ও দৈনিক গনকন্ঠ চরফ্যাসন প্রতিনিধি মোঃ আরিফ হোসেন ।

জানা যায়, নুরাবাদ ৬নং ওয়ার্ডের নুরাবাদ ১৬নং সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উত্তর পাশে কবিরের বাড়ীতে তার নিজ ঘরে কিছুদিনে অনৈতিক ভাবে একটি ছেলে বসবাস করতেছে। এ বিষয়টি নিয়ে এলাকায় জনমনে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হলে সাংবাদিকরা জানতে পেরে ওই বাড়ীতে সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহ করতে যায়।

সেখানে সাংবাদিকরা ছেলেটির পরিচয় জানতে চাইলে সে বলে, ইউছুফ বলেনএটা আমার শশুরের ঘর এবং সুমাইয়া আমার স্ত্রী, প্রায় চার মাস হয়েছে বিয়ে করেছি। এ সময় সুমাইয়ার পিতা মোঃ কবির ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মেয়েটি এবার এস এস সি পরীক্ষা দিয়েছে। মেয়েটির বয়স ১৮ বছরের কম হওয়ায় কাবিন করতে পরিনি।

সংবাদ সংগ্রহের কাজ শেষ না হতেই পার্শ্ববর্তী সদ্য অবসর প্রাপ্ত সেনা সদস্য মোঃ মোশারেফ হোসেন নসু প্রথমে এসেই সাংবাদিকদের বলে এ বাড়ীতে প্রবেশ করার অনুমতি আপনাদেরকে কে দিয়েছে? সাংবাদিকরা সাংবাদিক পরিচয় দেওয়ার পরে সে সাংবাদিকদের আইডি কার্ড দেখতে চায়। সাংবাদিকরা আইডি কার্ড দেখানোর পরেও নসু, মোঃ কবির, মোঃ মামুন সহ আরো চার-পাঁচজন সাংবাদিকদের দিকে তেড়ে এসে গালি-গালাজ করে এবং প্রকাশ্যে সাংবাদিকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।

তাৎক্ষনিকভাবে এ বিষয়টি সাংবাদিকরা চরফ্যাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিন ও দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল হোসেনকে মুঠোফোনে অবগত করেন।
দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ ইকবাল হোসেন বলেন , লিখিত অভিযোগ পেয়েছি এখন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

চরফ্যাসন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিন বলেন, সাংবাদিকরা আমাকে বিষয়টি মুঠোফোনে অবগত করেছে। তবে লিখিত আকারে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।