ভোলার চরফ্যশনে ঘুরতে এসে প্রাণ গেলো স্কুল ছাত্রী তানজিলার

বাংলার কলম বাংলার কলম

নিজস্ব ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:০৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৩, ২০২০ | আপডেট: ১:০৫ অপরাহ্ণ

ভোলার চরফ্যাসনে প্রেমিককের সাথে ঘুরতে এসে দ্রুতগতির মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে ৭ম শ্রেণীরছাত্রী তানজিলার মৃত্যু হয়েছে। শনিবার বিকেল ৫টায় চরফ্যাসন পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের সড়কে এই দূর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা আহত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে আনেন। চরফ্যাসন হাসপাতাল থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেলে নেয়ার পথে রাত সাড়ে ৭টায় তানজিলা মারা যান।

নিহত তানজিলা চরআফজাল গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে। এই ঘটনায় তানজিলার বাবা আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে মেয়েকে অপহরন ও হত্যার অভিযোগ এনে ৫জনকে আসামী করে এজাহার দাখিল করেছেন বলে চরফ্যাসন থানার ওসি জানিয়েছেন। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি। পুলিশ, ভিক্টিমের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার বিকেলে একটি টিভিএস মোটরসাইকেলের পেছনে বসা ছিল তানজিলা। প্রেমিক চালক রাকিব দ্রুতগতিতে গাড়িটি চালাচ্ছিলেন।

পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডেও সাবেক জহির কমিশনারের বাড়ির সামনে সড়কের স্পিডব্রেকারে দ্রুতগতির গাড়িটি ধাক্কাখেলে পেছন থেকে তানজিলা সড়কে পড়ে গুরুতর আহত হন। প্রেমিক রাকিবসহ স্থানীয়রা তানজিলাকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে নিয়ে আসেন। অবস্থা গুরুতর দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।


তবে এঘটনায় নিহত তানজিলার বাবা অনোয়ার হোসেন বাদি হয়ে মেয়েকে অপহরন ও হত্যার অভিযেগ এনে চরফ্যাসন থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেছেন। এজাহারে তিনি দাবী করেছেন, ৭ম শ্রেণি পড়–য়া তার মেয়ে তানজিলা প্রাইভেট পড়ার জন্য একই গ্রামের মোল্লাবাড়িতে যান। সেখান থেকে চর আফজাল গ্রামের কুদ্দুসের ছেলে রাকিবসহ কয়েকজন তানজিলাকে অপহরণের উদ্দেশে জোরপূর্বক মোটরসাইকে তুলে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যান।

তানজিলাকে অপহরণ করে দ্রুত পালাতে গেলে মেয়ের অপহরন কারীদের হাত থেকে বাচঁতে ঝাপটা ঝাপটি করলে অপহরনকারীরা মোটরসাইকেল থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে হত্যা করেছেন বলে মেয়ের বাবা দাবী করেন।

চরফ্যাসন থানার ওসি সামসুল আরেফিন জানান, দূর্ঘটনা কবলিত মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়েছে। লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। নিহতের বাবা এজাহার দাখিল করেছে এবং মামলা দায়েরের প্রস্ততি চলছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা বলছে।