বর্তমান অসৎ সমাজে, সৎ থাকাই বড় কঠিন

প্রকাশিত: ৯:৪০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২০, ২০২০ | আপডেট: ৯:৪০ অপরাহ্ণ

বর্তমানে দুর্নীতি করার প্রতিযোগিতায় আমরা শীর্ষে। বর্তমান সমাজে অন্যায়, অপরাধ করা যাবে, বরং তা নিয়ে প্রশ্ন তোলাটা অন্যায়, বাজে আচরণের পরিচায়ক৷ ঘুষ-দুর্নীতি, অন্যায়-অপরাধের পক্ষে সাফাই গাওয়ার মতো মানুষের অভাব নেই৷ আমার বিবেক বিবেচনায় দুর্নীতি দেখে চুপ করে থাকা ও অন্যায়৷

বড় চমক দেখা যায় তখনই , অসৎ ও দুর্নীতিবাজরা যখন দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলেন সাধুদের চাইতেও শক্ত গলায়৷ যেসব প্রজন্মের মধ্যে ঘুস-দুর্নীতি গ্রহণযোগ্য সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে, সেই প্রজন্মকে শুদ্ধ করা কঠিন, কেননা, তাদের মানসিকতা পরিবর্তন অসম্ভব এখন৷

যেটা সম্ভব তা হলো, দুর্নীতিবিরোধী মানসিকতা নতুন তরুণ প্রজন্মের মধ্যে গড়ে তোলা, যা অদূর ভবিষ্যতে অবস্থার উন্নতি করতে সহায়তা করবে৷ সৎ সমাজে, সৎ থাকা যত সহজ, অসৎ সমাজে, সৎ থাকা ততই কঠিন৷ কেউ যদি ভালো কিছু করে থাকে তবে তাকে অনুপ্রাণিত করা উচিত, আঘাত দেওয়া নয়। এ জন্য দরকার একে অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ।

বতর্মান সমাজে মানুষের প্রতি মানুষের ভালোবাসার অকৃত্রিম শ্রদ্ধাবোধ কোথায় যেন হারিয়ে গেছে।
বতর্মান সমাজে দুর্নীতি একটি সামাজিক বড় ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। বড় সমস্যা হচ্ছে, সমাজ ধীরে ধীরে দুর্নীতিগ্রস্ত লোকদের প্রশ্রয় দিয়ে ফেলছে। সমাজ তাদের গ্রহণ করে নিচ্ছে। আজ সমাজে বিদ্বান লোকের কোনো সমাদর নেই। আগের দিনে সমাজ শ্রদ্ধা করত বিদ্বান ব্যক্তিদের। আজ সমাজ সমীহ করে টাকাওয়ালাদের, বিত্তশালীদের- তাদের টাকার উৎস যাই হোক না কেন। আমার কেন জানি মনে হয় রাষ্ট্র, সরকার ও সমাজকে একটা ‘মেসেজ’ দিতে হবে দুর্নীতিবাজদের উদ্দেশে।

বর্তমান সমাজে দুর্নীতি একটি সামাজিক ব্যাধি এবং সমাজ ও সভ্যতার জন্য মারাত্মক অভিশাপ। একমাত্র দুর্নীতির কারণেই আমাদের ওপর নেমে এসেছে দরিদ্রতা, মহামারী করোনা ভাইরাস এবং দেশের উন্নয়ন মারাত্মকভাবে বাধাগ্রস্ত । তাই অবিলম্বে এর মূলোৎপাটন অপরিহার্য। লোভ মানুষের সব দুর্নীতি ও অপকর্মের মূল উৎস, তাই ইহলৌকিক ও পরকালীন জীবনে সাফল্যের জন্য লোভ-লালসার কবল থেকে নিজেকে রক্ষা করতে আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছি । মানুষকে সৎ চরিত্রবান হতে হলে, মনুষ্যত্ব অর্জন করতে হলে ও আদর্শ সুশীলসমাজ গড়তে হলে প্রত্যেকের উচিত জীবনের সর্বক্ষেত্রে লোভ-লালসা ও দুর্নীতি থেকে দূরে থাকা। দুর্নীতিবাজ দেরকে বলছি আপনারা দুর্নীতি করে টাকা নিয়ে তো কবরে যেতে পারবেন না

এই মহামারী করোনা ভাইরাসে অনেক মানুষ খুব কষ্টে আছে। তাদের সাহায্যের জন্য আপনার এই দুর্নীতি করা টাকা থেকে কিছু বিলিয়ে দিন।
অসৎ, দুর্নীতিপ্রবণ সমাজে নিজেকে যে সৎ রাখতে পেরেছি, এটাই একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে দেশের প্রতি আমার অবদান৷

তাই সাংবাদিক ভাইদের কে বলছি কোথায় কোথায় দুর্নীতি হচ্ছে তা পত্রিকার পাতায় তুলে ধরুন। যেখানে বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, দেশের জনগণের সুন্দর জীবন যাপন করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সেখানে দুর্নীতিবাজরা দেশের উন্নয়নকে খেয়ে ফেলার চেষ্টা করছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে হলে দুর্নীতিবাজদেরকে উচ্ছেদ করতে হবে। তাহলে দেশের সাধারণ জনগণ সুখে জীবন যাপন করতে পারবে।দুর্নীতিকে না বলুন, সুন্দর সমাজ গঠনে সাহায্য করুন।

কবির নেওয়াজ রাজ
সম্পাদক, মানুষের কল্যাণে প্রতিদিন।